সবচেয়ে কম দামে ভালো মানের ফ্রিজ 2022 (ওয়ালটন,মিনিস্টার ফ্রিজ)

ফ্রিজ কিঃ কৃত্রিমভাবে খাদ্য পানীয়, ফলমূল দীর্ঘদিন সংরক্ষণ করার একটি বিদ্যুৎ চালিত যন্ত্র। যাকে আমরা রেফ্রিজারেটর বা কথিতভাষায় ফ্রিজ বলে থাকি।

সব ফ্রিজের কাজ একই, আপনার খাবার ঠাণ্ডা করে অনেকদিন সংরক্ষণ করে রাখা। কিন্তু যখন নতুন একটা ফ্রিজ কিনতে যাবেন তখন অনেক বিষয় মাথায় রাখতে হয়। কোনটা আপনার স্টাইল, জায়গা, দাম গুরুত্বপূর্ণ।

গত কয়েক বছরে, বাংলাদেশ অর্থনৈতিক দিক থেকে উন্নতি করার সাথে সাথে।বিভিন্ন কোম্পানি বাংলাদেশ ফ্রিজ উৎপাদন শুরু করে। ফলে, ফ্রিজের দাম ক্রয়ক্ষমতার মধ্যেএসেছে।বিশেষ করে মধ্যবিত্ত পরিবারের জন্য সুবিধা হয়েছে। কারণ একসময় বিলাসিতার পণ্য থেকে এখন একটি জনপ্রিয় গৃহস্থালি যন্ত্রে রুপ নিয়েছে।

আমার রুমমেটের বন্ধু তার সালারি বা সে এক মাসে যে টাঁকা আয় করে তার থেকে কিছু টাকা দিয়ে তার পরিবারের জন্য ফ্রিজ কিনবে বলেছিল। সে এক ছুটির দিন আমাদের রুমে আসলো। তার কথা ছিল এমন, মোটামুটি কম দামে ভালো মানের ফ্রিজ কোনটা? এবং কোন কম্পানির ফ্রিজ নিলে ভালো হবে। কারণ বাজারে অনেক কোম্পানির বা ব্রান্ডের ফ্রিজ পাওয়া যায়।

আরও পড়ুন-

কম দামের কিংবা বেশি দামের। এ দোকান থেকে ও দোকান, এই ফিচার আছে তো আরেকটা মিসিং। কিন্তু কোনটা ব্যাবহার করে ভালো লাগবে। সেদিনেই ঠিক করেছিলাম আপনাদের জন্য লিখতে হবে। অই অভিজ্ঞতার আলোকে আজ আপনাদেরকে দেখানোর চেষ্টা করব কম দামের মধ্যে বাজারের সবচেয়ে ভালো ফ্রিজ কিভাবে পেতে পারি।

ফ্রিজ কেনার আগে যা জানা প্রয়োজনঃ

শুধু কম দামে ফিজে কেনার আগে নয়, সবসময় ফ্রিজ কেনার আগে যেসব বিষয়ে দেখতে হবে-

কম্প্রেসার

যত উন্নতমানের কম্প্রেসার একটি ফ্রিজে ব্যবহার করা হবে। ভাল কম্প্রেসার ভালো ফ্রিজের মানদণ্ড। অধিক টেকসই এবং দ্রুত বেশি ঠাণ্ডা করে এই জিনিসটি। একটি ফ্রিজের হার্ট বলা হয় কম্প্রেসারকে। অত্যাধুনিক ইনভার্টার কম্প্রেসার আছে এমন ফ্রিজ কেনা বুদ্ধিমানের কাজ।

বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী

বাংলাদেশে এমনিতেই বিদ্যুতের দাম দিন দিন বাড়ছে। তাছাড়া তুলনামূলক কম বিদ্যুৎ খরচ করে এমন ফ্রিজ কেনা ভাল। এতে আপনি পরিবেশ বাচালেন। এবং দেশের সম্পদ বাচালেন এবং নিজের কষ্টের উপার্জিত টাকা বাচালেন। আপনি বুদ্ধিমান। বেশীরভাগ ভাগ ফ্রিজে স্টার চিনহ দিয়ে এই বিদ্যুৎ সাশ্রয় ক্ষমতা বোঝানো হয়। এটা খেয়াল রাখবেন নোতুন ফ্রিজটি বাছাই করার সময়। চার বা পাঁচ স্টার মার্কা কেনা ভাল।

ওয়ারেন্টি

বিভিন্ন ফ্রিজ কোম্পানি ৫,৭ কিংবা ১০ বছর মেয়াদী ওয়ারেন্টি দিয়ে থাকে। ওয়ারেন্টি এর শর্ত গুলো পড়ে নেওয়া ভাল। যাতে পরবর্তীতে ঝামেলা বা ভুল বুঝাবুঝি এড়ানো যায়। এটা দায়িত্ববান বেক্তি রা করে থাকেন। ফ্রিজের ওয়ারেন্টি থাকার সুবিধা নিশ্চয় আপনি জানেন। না জানলে কমেন্ট করুন আমরা উত্তর দিয়ে হেল্প করব।

ইনভারটার টেকনোলজি

ফ্রিজে সাধারণত দুই ধরনের টেকনোলজি লক্ষ্য করা যায়ঃ

  • ইনভার্টার টেকনোলজি
  • ইন্ডাক্সন টেকনোলজি

সিএফসি বা এইচ এফ সি গ্যাস মুক্ত কি না। এটা খেয়াল করবেন প্লিজ। এতে পরিবেশ দূষিত হবে না এবং আপনার মাসিক বিদ্যুৎ বিল অনেক কমে আসবে নিশ্চিত থাকুন। এজন্য ইনভার্টার টেকনোলজি যুক্ত ফ্রিজ কিনবেন।

ন্যানো কপার বডি

আমরা অনেকেই ৪-৫ দিনের এক বারে কিনে রাখি ফ্রিজে। কারণ আমরা সবাই নিজের প্রফেশনাল কাজের জগত নিয়ে বিজি থাকি। অনেকসময় একটানা অনেকদিন ফ্রিজে খাবার ফলমূল রাখলে সেটা জীবাণু বান ছত্রাক জন্মাতে পারে। যেটা আমরা খালি চোখে দেখতে পারিনা। তাই ফ্রিজে রাখা ফলমূল বা খাবার অনেক দিন ফ্রেশ থাকে এটা আমরা সবাই চাই। এজন্য ন্যানো কপার বডি যুক্ত ফ্রিজ দেখে নেওয়া ভালো। আপনি নিশ্চিত থাকতে পারবেন। যাতে আপনি ও আপনার পরিবার সুস্থ থাকেন এটা আমরাও চাই। ব্যাকটেরিয়া বা জীবাণুর হাত থেকে নিরাপদ থাকুন।

ফ্রসট – নন ফ্রসট

নন ফ্রস্ত ফ্রিজ গুলোতে টাইমার বা সেন্সর থাকে। ফলে খাবারে বরফ জমে না। আপনি যদি অনেকদিন ফ্রিজে খাবার রাখতে চান। তাহলে নন ফ্রস্ত ফ্রিজ আপনার জন্য।

ফ্রিজের ডিজাইন

আপনার পছন্দের রঙ বা যেখানে ফ্রিজটি রাখবেন।সেই হিসেবে আপনার নোতুন ফ্রিজ এর রঙ অতান্ত গুরুত্বপূর্ণ। সেটা কম দামের হোক কিংবা বেশি দামের ফ্রিজ। কিছু এসে যায় না। ভালো লাগা বলে একটা বিষয় আছে।

কম দামের নাকি বেশি দামের ফ্রিজ

এইবার আশি আসল কথায়। যেটা সবচেয়ে প্রয়োজনীয় টা হল টাকা। আপনার এতক্ষণে হয়ত আপনার কাঙ্ক্ষিত ফ্রিজ পছন্দ করেছেন। এবার একটি তালিকা করে ফেলুন ছোট করে। তারপর আপনার বাজেট নির্ধারণ করুন। আপনার সাধের মধ্যে নিচের ফ্রিজ গুলো বা আপনার তালিকা করা ফ্রিজটি বেছে নিন। অনেকেই আপনাকে বলতে পারে ( টাকা শর্ট পড়লে) লোণ নিতে বা কিস্তিতে নিতে। কিন্তু আমরা সাজেশন করছি দয়া করে কখনো লোণ করে কিনবেন না। বাকিটা আপনার বেক্তিগত ব্যাপার।

তুলনামূলক কম দামে ভালো ফ্রিজের তালিকাঃ

ওয়ালটন WFD-1B6-GDEL-XX ফ্রিজের দাম

  • দামঃ ১৯৫০০/- টাকা
  • ক্যাপাসিটিঃ ১৩২ লিটার
  • Refrigerant: R600a / R134a
  • ইকোফ্রেন্ডলি
  • ফ্রস্ত ফ্রিজ

ওয়ালটন WFD-1D4-GDEL-XX ফ্রিজের দাম

  • দামঃ ২০৫০০/- টাকা
  • কাপাসিতিঃ ১৫৭ লিটার
  • ইকোফ্রেন্ডলি
  • ফ্রস্ত ফ্রিজ

ওয়ালটন WFA-2A3-GDEL-XX ফ্রিজের দাম

  • দামঃ ২৩৫০০/- টাকা
  • কাপাসিটিঃ ২১৩ লিটার সরবচ্চ
  • দ্রুত ঠাণ্ডা হয়
  • ইকোফ্রেন্ডলি

ওয়ালটন WFE-3A2-ELNX-XX ফ্রিজের দাম

  • দামঃ ২৯৭৫০/- টাকা
  • কাপাসিটিঃ ২৯০ লিটার
  • ভোল্টেজ স্তাবিলাইজার এর দরকার নাই
  • দ্রুত ঠাণ্ডা হয়
  • ইকোফ্রেন্ডলি

ওয়ালটন WFO-1X1-RXXX-XX ফ্রিজের দাম

  • দামঃ ১৩৫৫০/- টাকা
  • কাপাসিটিঃ ১০১ লিটার
  • দ্রুত ঠাণ্ডা হয়
  • ইকো ফ্রেন্ডলি

ওয়ালটন WNM-1N5-RXXX-RP

  • দামঃ ২৫৯০০ টাকা
  • কাপাসিটিঃ ১৯৫ লিটার
  • No need to use a Voltage Stabilizer

Warranty Information:

  1. Main Parts (Compressor): 12 Years
  2. Spare Parts: 4 Years
  3. After Sales Service:5 Years

Leave a Comment