কিভাবে লম্বা হওয়া যায় লম্বা হওয়ার সহজ উপায়

কিভাবে লম্বা হওয়া যায় এই নিয়ে চিন্তিত? আপনার যেমন উচ্চতা আছে সেটা আপনার জন্য স্বাভাবিক। ঈশ্বর এভাবেই সৃষ্টি করেছেন আপনাকে। তবুও এটাতে আপনার কিছুটা হাত আছে আপনার লম্বা হওয়ার সম্ভাবনাকে। চলুন জেনে নেওয়া যায়, কিভাবে লম্বা হওয়া যায় বা লম্বা হওয়ার সহজ উপায় সম্পর্কে সঠিক তথ্য জেনে আসি।

আমরা অনেকেই ভাবি যে শরীরে লম্বা হওয়া বংশগত বিষয় এইটা পুরোপুরি সত্য নয়। আপনার শরীরের ভাল যত্ন নেওয়া উচিত। এটা আপনাকে আরও লম্বা হতে সাহায্য করতে পারে, তবে আপনার উচ্চতা বেশিরভাগই আপনার জিনগত ব্যাপার দ্বারা নির্ধারিত হয়। আপনার গ্রোথ প্লেটগুলি একসাথে মিশ্রিত হয়ে গেলে, আপনি লম্বা হওয়া বন্ধ করে দেবেন, যা সাধারণত ১৪ থেকে ২০ বছর বয়সের মধ্যে ঘটে ।আপনি প্রতিদিন আপনার মেরুদণ্ড প্রসারিত করে আপনার উচ্চতা প্রায় 0.5 থেকে 2 ইঞ্চি বাড়িয়ে ফেলতে পারেন।

আরও পড়ুন-

খাবার এর তালিকা পরিবর্তন করুন

পুষ্টি সমৃদ্ধ স্বাস্থ্যকর খাদ্য আপনার শরীরের বৃদ্ধি করতে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে। আপনার দেহের জন্য প্রয়োজনীয় পুষ্টি সম্ভাব্য সরবচ্চ উচ্চতা বৃদ্ধি করে। এটার ঘাটতি থাকলে, সম্ভাব্য উচ্চতাই পৌঁছাতে ব্যাঘাত ঘটে। আপনার খাবার তালিকায় নিয়মিত টাটকা শাঁকসবজি, ফলমূল এবং চর্বিযুক্ত প্রোটিন রাখুন। চর্বিযুক্ত প্রোটিনগুলির মধ্যে মুরগী, টার্কি, মাছ, মটরশুটি, বাদাম, টফু এবং কম ফ্যাটযুক্ত দুগ্ধ রয়েছে। যথেষ্ট পরিমাণ প্রোটিন গ্রহণ করুন, এটি আপনার শরীরে পেশী গঠন করে ও ওজন বাড়াতে সাহায্য করে। মজার বিষয় হচ্ছে প্রোটিন আপনার উচ্চতা বৃদ্ধি করে। প্রতি ওয়াক্তে খাবারে প্রোটিন রাখুন। উদাহরণস্বরূপ, আপনি ব্রেকফাস্ট এ দই খেতে পারেন, দুপুরের খাবারে মাছ এবং রাতে মুরগি এবং নাস্তা হিসাবে স্ট্রিং পনির খেতে পারেন। আপনার যদি অ্যালার্জি না থাকে তবে প্রতিদিন একটি ডিম খান। অল্প বয়স্ক বাচ্চারা যারা প্রতিদিন পুরো ডিম খায় এবং যারা খায় না তাদের তুলনায় লম্বা হতে পারে। ডিমগুলিতে প্রোটিন এবং ভিটামিন থাকে যা স্বাস্থ্যকর গ্রোথ এর পক্ষে লম্বা হতে সহায়তা করে এবং এগুলি আপনার খাবার তালিকায় যুক্ত করার জন্য একটি সস্তা এবং সহজ খাবারও। লম্বা হওয়া যায় লম্বা হওয়ার সহজ উপায় হল  প্রতিদিন 1 টি খাবারের জন্য একটি ডিম রাখা। এবং ডাক্তার এর পরামশ অনুযায়ী ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেতে পারেন। এটি আপনার পুষ্টির চাহিদা পূরণ করতে পারে।

জীবনযাপনে পরিবর্তন আনুন

লম্বা হওয়ার জন্য আপনার পসচার ঠিক রাখা জরুরি। যেমন, হাঁটার সময় সোজা ও ঘাড় একটু লম্বাটে রেখে হাঁটুন। এটি আসলে আপনাকে লম্বা হতে সাহায্য করবে না, তবে আপনাকে লম্বা দেখাতে হেল্প করবে। স্বাস্থ্যকর হাড় এবং পেশীগুলির জন্য প্রতিদিন ৩০ মিনিট ব্যায়াম করুন। আপনি সম্ভবত জানেন যে প্রতিদিন ব্যায়াম আপনাকে সুস্থ রাখতে সহায়তা করে, তবে এটি আপনাকে লম্বা হওয়ার ক্ষেত্রেও সহায়তা করতে পারে। ব্যায়াম করা স্বাস্থ্যকর হাড় এবং পেশী তৈরি করে, তাই এটি আপনাকে আপনার পক্ষে সবচেয়ে লম্বা হতে সহায়তা করতে পারে। আপনি যেকোনো ধরণের ব্যায়াম করতে পারেন, যেটাতে আপনি সাছন্দবোধ করেন, সেটা নিয়মিত করুন। যেকোনো খেলাধুলা, হাঁটাহাঁটি, নাচতে কিংবা দৌড়াতে পারেন।

পর্যাপ্ত ঘুমানো গুরুত্বপূর্ণ

কিভাবে লম্বা হওয়া যায় লম্বা হওয়ার সহজ উপায় এই প্রশ্ন আপনি করছেন। কিন্তু আপনি কি জানেন পর্যাপ্ত ঘুম আপনাকে কি পরিমাণ শারীরিক গ্রথ দিতে পারে? প্রতি রাতে পর্যাপ্ত ঘুম আপনার শরীরকে মেরামত করে, ফলে সুন্দর গ্রোথ বা বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে। দেখে নিন আপনার বয়স অনুযায়ী, কতক্ষণ ঘুমানো উচিতঃ

  • ২ বছর বা তার চেয়ে কম বয়সী বাচ্চাদের ১৩-২২ ঘন্টা প্রয়োজন
  • ৩-৫ বছর বয়সী বাচ্চাদের ১১-১৩ ঘন্টা প্রয়োজন।
  • ৬-৭ বছর বয়সী বাচ্চাদের ৯-১০ ঘন্টা প্রয়োজন।
  • ৮-১৪ বছর বয়সী কিশোরদের ৮-৯ ঘণ্টা প্রয়োজন
  • ১৫-১৭ বছর বয়সী কিশোরদের ৭.৫-৮ ঘন্টা প্রয়োজন।
  • ১৮ বছর বা তার বেশি বয়স্কদের ৭-৯ ঘন্টা প্রয়োজন।

কখনো শরীর দুর্বল বা অসুস্থ লাগলে দ্রুত ডাক্তার এর শরণাপন্ন হন।

উপসংহারঃ কিভাবে লম্বা হওয়া যায় বিষয়ক

লম্বা হতে চাইলে উপরোক্ত বিষয় বা নিয়ম গুলো মেনে চলার চেষ্টা করুন। আশা করি আল্লাহ/ ঈশ্বর আপনার জন্য লম্বা হওয়ার সহজ উপায় কার্যকরী করে তুলবেন। আপনার কি মনে হয়, লম্বা হওয়ার জন্য আর কি কি করা উচিত আমাদের? কমেন্ট করে আপনার মতামত জানান। আমরা তালিকায় যুক্ত করে নেব। ধন্যবাদ।

Leave a Comment